সবাই ভিন্ন ভিন্ন ভাবে কাজ করে, তাই আপনার দূর্বলতাগুলো সনাক্ত করার চেষ্টা করুন এবং কোনো একটি ধাপে গিয়ে নিজেকে আটকে ফেলবেন না। যেমন একটি অনুসন্ধানের শুরুতে আপনার মনে হতে পারে যে, বিষয়টিতে আরও বেশি পড়াশোনা করা প্রয়োজন। কিন্তু পড়তে সময় লাগে। এবং বেশি পড়তে থাকলে আপনি আরো অনেক রেফারেন্স পেতে থাকবেন। এবং নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে এতো কিছু পড়ে ওঠা সম্ভব হবে না। ভালো উপায় হতে পারে ইন্টারনেটে বুদ্ধিমত্তার সাথে কিছু সার্চ করে জেনে নেওয়া। যেমন কিওয়ার্ডকে উদ্ধৃতিচিহ্নের ভেতর রেখে সার্চ দেওয়া। এতে অপ্রাসঙ্গিক অনেক লেখা ফিল্টার হয়ে যাবে। আপনার প্রতিবেদনের জন্য আগ্রহ-উদ্দীপক কিছু পাওয়া গেলে তার ওয়েব ঠিকানা বুকমার্ক করে রাখুন, যাতে পরে প্রয়োজনের সময় সহজে খুঁজে পান এবং সময় নষ্ট না হয়।

একইভাবে, শুধু একজন বিশেষজ্ঞের ওপরই সব আশাভরসা রাখবেন না। প্রাসঙ্গিক যত মানুষের সঙ্গে সম্ভব, বিস্তৃতভাবে যোগাযোগ করুন। অনুসন্ধানের শুরুর পর্যায়ে, আপনাকে ঘটনার গভীরে যাওয়ার বদলে বরং বিস্তৃত পরিসরে খোঁজ চালাতে হবে।

আপনাকে একটি সময়কাঠামোও ঠিক করতে হবে। এতে বুঝতে পারবেন, গবেষণার কোন পর্যায়ে কতটা সময় দেওয়া যাবে। অনুসন্ধানটি ভিন্ন কোনো বাঁক নিলে, শুরুর গাইডলাইন দেখে নিজেকে স্মরণ করিয়ে দিন যে, আপনাকে এগিয়ে যেতে হবে। যা পেতে চাইছেন, তা পাওয়ার জন্য বিকল্প উপায় খুঁজতে হবে।